১২১৮ ইভটিজিং-এর কারণ কি? Causes of Eveteasing?

১২১৮ ইভটিজিং-এর কারণ কি? Causes of Eveteasing?

24 বার প্রদর্শিত
"সাধারণ জিজ্ঞেসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন (4,617 পয়েন্ট)
Like

1 উত্তর

ইভটিজিং-এর কারণ
Causes of Eveteasing:

ইভটিজিং কোনাে একক কারণে ইভটিজিংয়ের ঘটনা ঘটে না। মূলত পারিবারিক স্নেহ-ভালােভাসা ও সচেতনতার অভাব, নৈতিক ও চারিত্রিক অবক্ষয়, মুক্তবুদ্ধি চর্চার পরিবেশের অভাব, মূল্যবােধের অবক্ষয়, বিকৃত মানসিকতা, খারাপ ইচ্ছার প্রতিফলন, নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি, সুশিক্ষার অভাব, রাজনৈতিক দলগুলাের ক্ষমতার অপব্যবহার, বখাটেদের পৌরুষের প্রদর্শন;
অপসংস্কৃতির প্রভাব, সুনির্দিষ্ট আইনের অভাব ইত্যাদি কারণে সমাজে ইভটিজিং ঘটে থাকে। প্রকৃতপক্ষে ছেলেমেয়ে সবার জীবনে বয়ঃসন্ধির পরিবর্তনগুলাের সাথে শারীরিক ও মানসিক সত্তার যােগ নিহিত, স্বাভাবিক ও মৌলিক। সেখানে আইন
ও শাস্তির মতাে নিরপেক্ষ কঠোর নিদান অচল ও অকার্যকর। এছাড়া বয়ঃসন্ধিকালে হসমােনের পরিবর্তনের ফলে ছেলেমেয়েরা উভয়ে উভয়ের প্রতি আগ্রহী হয়ে ওঠে। ছেলেদের এ আগ্রহ অনেক সময় সুস্থ-স্বাভাবিক পর্যায়ে না থেকে তা ইভটিজিং-এ রূপ নেয়। এক গবেষণায় দেখা যায়, বাংলাদেশে ইভটিজিং-এর পেছনে বেশ কয়েকটি বিষয় দায়ী, যার মধ্যে অন্যতম হলাে নারীর প্রতি অশ্রদ্ধা, নারীর ক্ষমতায়নের সুযােগের অপ্রতুলতা, আকাশ সংস্কৃতির আগ্রাসন ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নেতিবাচক ভূমিকা।

দেখা যায় সমাজের বিপথগামী, মানসিক বিকারগ্রস্ত, ভীরু, অযােগ্য উঠতি বয়সী তরুণ, কিশাের ও যুবকরা এ ধরনের নেতিবাচক কর্মকাণ্ডের সাথে বেশি জড়িত। আর নারীরা বিষয়টিকে অনিবার্য সহজাত ও স্বাভাকি বলে মেনে নিয়ে এ মানসিক যন্ত্রণা সয়ে যাচ্ছে। সইতে সইতে এক পর্যায়ে কেউ কেউ আত্মহত্যা পর্যন্ত করে বসছে, তারপরও বাকিরা সয়ে যাচ্ছে অভিভাবকরাও মেয়েদেরও কেবল সইতেই শেখান । ইভটিজিং শাস্তিযােগ্য অপরাধ হলেও আইনের আশ্রয় নিতে খুব কম সংখ্যক মানুষই অগ্রসর হন। বিষয়টিতে যেমন আইনের প্রতি মানুষের অনাস্থাকে
কিছুটা হলেও প্রমাণ করে, তেমনি মেয়েঘটিত বিষয়সমূহ লুকানাের যে প্রবণতা আমাদের সমাজে বিদ্যমান তাকেও স্পষ্ট করে। তাছাড়া বিদ্যমান সমাজ ব্যবস্থায় ইভটিজিং-এর বিষয়ে নারীর উচ্ছুঙ্খল চলাফেরাকেই মূলত দায়ী করা হয় বিধায়
পিতামাতারও এ দৃষ্টিভঙ্গির উর্ধ্বে উঠতে পারেন না। তারাও ইভটিজিং-এর শিকার, তাদের কন্যাটিকে সবকিছুর জন্য দায়ী করেন, কিন্তু স্নেহ-মমতা সহযােগে তাকে সাহস যােগানাের কথা ভাবেন না। তাদের এ মনােভাব মেয়েটির মানসিক ভারসাম্য বজায় রাখতে সহায়ক তাে হয়ই না, বরং অনেক ক্ষেত্রেই অসহায়বােধ করে আত্মহত্যার দিকে এগিয়ে যেতে অনুপ্রেরণা যােগায়। সম্পতি এক গবেষণায় দেখা গেছে, পিতা-মাতারা স্কুলে ও চলার পথে তাদের মেয়েদের ইভটিজিং ও নির্যাতনের শিকার হবার কথা স্বীকার করলেও ৫০ শতাংশের বেশি পিতা-মাতা এক্ষেত্রে তাদের মেয়েদেরকেই দোষী বলে মনে করেন। উপরন্তু ১৬.৭ শতাংশ ছাত্রী শিক্ষক কর্তৃক ইভটিজিংয়ের শিকার হচ্ছে। ২০০৯ সালের এক পরিসংখ্যানে দেখা যায় অধিকাংশ ছাত্রও ইভটিজিংকে কোনা অপরাধ বলে মনে করে না।

ইভটিজিং বেড়ে যাওয়ার আরাে একটি প্রধান কারণ হলা আমাদের সামাজিক ও পারিবারিক মূল্যবোধে সাম্প্রতিককালে বড় ধরনের আঘাত এসেছে। আকাশ সংস্কৃতির প্রভাব এর জন্য বহুলাংশে দায়ী। রাজনৈতিক সহনশীলতা কমে যাওয়ায় ইভটিজিং বৃদ্ধির একটি অন্যতম কারণ। এছাড়া সমাজে অনুকরণীয় আদর্শের অভাব এবং সমাজে নারীকে মানুষ হিসেবে সমান গুরুত্ব না দেয়াও এক্ষেত্রে কম গুরুত্বপূর্ণ নয়। এদেশে যুবসমাজের জন্য সুস্থ বিনােদনের পর্যাপ্ত সুযােগ নেই, নেই খেলাধুলা, ক্লাব কিংবা সাংস্কৃতিক তৎপরতা। ফলে স্বাভাবিকভাবেই মেয়েদের উত্ত্ক্ত করাকে বিনোদন হিসেবে নেয় তারা। এছাড়া শিক্ষার্থীদের শিক্ষা জীবন শেষে চাকরির অনিশ্চয়তা, বেকারত্ব, দারিদ্র্য ইত্যকার পরিস্থিতি তাদের আরো বেশি করে অপরাধপ্রবণ করে তুলছে।
উত্তর প্রদান করেছেন (4,617 পয়েন্ট)

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
08 জুন 2021 "সাধারণ জিজ্ঞেসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Admin (4,617 পয়েন্ট)
1 উত্তর
11 জুন 2021 "সাধারণ জিজ্ঞেসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাতকুলশীল
1 উত্তর
1 উত্তর
01 অক্টোবর 2021 "সাধারণ জ্ঞান" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন DIPOK ROY (1,920 পয়েন্ট)
1 উত্তর
30 সেপ্টেম্বর 2021 "সাধারণ জিজ্ঞেসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Shamima (2,104 পয়েন্ট)

17,573 টি প্রশ্ন

17,275 টি উত্তর

24 টি মন্তব্য

54,717 জন সদস্য

Answer Fair এ সুস্বাগতম, যেখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং গোষ্ঠীর অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন।
10 Online Users
0 Member 10 Guest
Today Visits : 7660
Yesterday Visits : 29145
Total Visits : 10402360
...